সুন্দরবন অঞ্চলের নদ-নদীর জীবন্ত স্বত্তা ফিরিয়ে দাও

সুন্দরবন অঞ্চলের নদ-নদীর জীবন্ত স্বত্তা ফিরিয়ে দাও, বক্তারা সুন্দরবনের নদী-নালাসহ সুন্দরবনের নদ-নদীর প্রাণচাঞ্চল্য ফিরিয়ে আনার

আহ্বান

জানান। তারা বলেন, সুন্দরবন অঞ্চলের নদী ও খালগুলো অপরিকল্পিত শিল্পায়ন, পরিবেশবিরোধী উন্নয়ন কর্মকাণ্ড, আগ্রাসন ও দূষণে জর্জরিত।

সরকারী

চ্যানেলের প্রবাহকে সক্রিয় রেখে পরিবেশ এবং জনগণকে সম্মান করে এমন একটি উন্নয়ন পরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে।সোমবার (১৪ মার্চ)

বিকেলে

মংলার চিলা বাজার সংলগ্ন পশুর নদীর তীরে বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা), ওয়াটারকিপারস বাংলাদেশ, পশুর নদী জলরক্ষী ও জবা নারী

দল

আয়োজিত এক বিক্ষোভে বক্তারা এসব কথা বলেন। আন্তর্জাতিক নদী উৎসর্গ দিবস।

আরও খবর পেতে ভিজিট করুউঃ newstipj.com

সুন্দরবন অঞ্চলের নদ-নদীর জীবন্ত স্বত্তা ফিরিয়ে দাও

বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন (বাপা) বাগেরহাট জেলার সংগঠক ও পশু নদীর পানি রক্ষাকারী মো. নুর আলম শেখ। অনশনের বিষয়ে কথা বলেছেন

এম এ নেতা সবুর রানা, কমলা সরকার, আব্দুর রশিদ হাওলাদার, শেখ রাসেল, নদী শ্রমিক হাসিব সরদার, চন্দ্রিকা মন্ডল প্রমুখ।বান্দরবানের সাঙ্গু নদীতে গোসল

করতে নেমে তিনজনকেই উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধারকৃত অন্য দুজন হলেন মরিয়ম আদনীন (১৯) ও আহনাফ আকিব (২২); তারা দুই ভাই বোন।

শনিবার বিকেলে লাশ নিয়ে নারায়ণগঞ্জের উদ্দেশে রওনা দেন স্বজনরা। সেদিন জীবিত উদ্ধার হওয়া শেখ মুশাইয়াত তানিশ জানান, রবিবার সকালের মধ্যেই তারা তাদের গন্তব্যে পৌঁছানোর আশা করছেন।

সেখানেই নিহতদের দাফন সম্পন্ন করা হবে বলে জানান তিনি

শুক্রবার বিকাল ৩টায় বান্দরবানের রোয়াংছড়ি উপজেলার তারাচা বাদুরঝর্ণা এলাকার সাঙ্গু নদীতে গোসল করতে গিয়ে ডুবে তাদের মৃত্যু হয়। ঘটনার কিছুক্ষণ

পর স্থানীয়রা মারিয়া ইসলাম (১৯) নামে এক নারী পর্যটককে উদ্ধার করে। হাসপাতালে নেওয়ার পর কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

রোয়াংছড়ি থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মির্জা জহির উদ্দিন জানান, বেলা সাড়ে ১১টায় আদনান নিখোঁজ হন এবং দুপুর দেড়টায় আকিবকে উদ্ধার করা

হয়। বান্দরবান ফায়ার সার্ভিসের সিনিয়র স্টেশন অফিসার নাজমুল আলম জানান, সাঙ্গু নদীর তলদেশে ৩০ থেকে ৪০ ফুট গভীর পাথরের গর্ত

(কুম) থেকে দমকলকর্মীরা তাদের মৃতদেহ উদ্ধার করেছে।

অনুষ্ঠানে বক্তারা আরো বলেন, নদীতে পশুর চলাচলের অনুপযোগী হয়ে তেল ও কয়লাবাহী জাহাজ ক্রমাগত ডুবে যাওয়ায় সুন্দরবনের জীববৈচিত্র্য হুমকির মুখে পড়েছে।

সুন্দরবন অঞ্চলের নদ-নদীর জীবন্ত স্বত্তা ফিরিয়ে দাও

বক্তারা বাগেরহাটের ভৈরব নদী ও শরণখোলার বলেশ্বর নদী দখল ও পরিষ্কার করার আহ্বান জানান। এক নোটে রাষ্ট্রপতির বাবা ড. নুর আলম নদী কমিশন কর্তৃক প্রকাশিত নদী দখলকারীদের উচ্ছেদের জন্য প্রশাসনের প্রতি আহ্বান জানান।

স্থানীয়করণ কর্মসূচিতে জেলে, বনকর্মী, জেলে, বাওয়ালি-মাওয়ালি এবং মহিলা সম্প্রদায়ের লোকজন উপস্থিত ছিলেন। “নদী বাঁচাও, দেশ বাঁচাও, প্লাস্টিক দূষণ বন্ধ কর, নদী বাঁচাও সুস্থ জীবন বাঁচাও, পশুর নদী বাঁচাও, নদী বাঁচাও, সুন্দরবন বাঁচাও। , এটা প্রকৃতির জন্য সময় “.

About admin

Check Also

আরব আমিরাত সফর শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী

আরব আমিরাত সফর শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী

আরব আমিরাত সফর শেষে দেশে ফিরেছেন প্রধানমন্ত্রী, সংযুক্ত আরব আমিরাতে পাঁচ দিনের সরকারি সফর শেষে দেশে …

Leave a Reply

Your email address will not be published.