৬৮০০ লিটার সয়াবিন তেল মজুদ গোডাউন সিলগালা

ভোলায় ৬৮০০ লিটার সয়াবিন তেল মজুদ গোডাউন সিলগালা, ভোলায় লাইসেন্সবিহীন ৬ হাজার ৮০০ লিটার সয়াবিন তেল অবৈধভাবে মজুদ

করায়

রাসেদুল আমিন নামে এক ব্যবসায়ীকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করে একটি গোডাউন সিলগালা করেছে ভ্রাম্যমাণ আদালত।একটি অ্যাপার্টমেন্ট নং নির্মাণ

করা হয়েছে. স্টেডিয়ামের ১ম রাস্তা।তিনি বলেন, বিষয়টি আজ মন্ত্রিসভায় আলোচনা চলছে।মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, আমদানিতে ১৫ শতাংশ ভ্যাট রয়েছে।

আমদানি ভ্যাট যথাসম্ভব কমিয়ে আনতে এনবিআরকে দ্রুত ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দেওয়া হয়। আমরা বিশ্বাস করি যে আমদানি হ্রাস বাজারে সরাসরি ইতিবাচক প্রভাব ফেলবে।

আরও খবর পেতে ভিজিট করুউঃ newstipj.com

ভোলায় ৬৮০০ লিটার সয়াবিন তেল মজুদ গোডাউন সিলগালা

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আকিব ওসমান বলেন, রমজানের আগে অসাধু ব্যবসায়ীরা বিপুল পরিমাণ সয়াবিন তেল অবৈধভাবে মজুদ করে। ন্যাশনাল

সিকিউরিটি

ইন্টেলিজেন্স (এনএসআই) অনুসারে, একটি অ্যাপার্টমেন্টে অভিযান চালানো হয়। ভোলার পৌরসভা থেকে ছয় হাজার ৬০০ লিটার সয়াবিন তেল

উদ্ধার করা হয়েছে।
ভোজ্যতেল ব্যবসায়ীদের ভ্যাট থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। আইনমন্ত্রী বলেন, তিনি এসআরওতে স্বাক্ষর করেছেন। সোমবার সচিবালয়ে

মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম এ তথ্য জানান।
ভোজ্যতেলের উপর খুচরা ভ্যাট প্রত্যাহার করা হয়েছে। এ ছাড়া আমদানির ওপর ভ্যাট কমানো নিশ্চিত করার দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে এনবিআরকে।

নতুন বিধান গৃহীত না হওয়া পর্যন্ত

এ নির্দেশনা বলবৎ থাকবে বলেও জানান মন্ত্রিপরিষদ সচিব। আজকের বৈঠকে একটি নতুন ইস্যু নিয়ে আলোচনা হয়েছে, মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, বৈঠকে একটি মন্তব্য করা হয়েছিল এবং আমদানি ভ্যাট কীভাবে 15% কমানো যায় তা দেখার জন্য এনবিআরকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছিল। যতক্ষণ না দেওয়া হয়।
তিনি বলেন, শুধু ভোজ্যতেল নয়, চিনি বা অন্যান্য নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের ওপরও ভ্যাট কমাতে হবে। খোদ সংকটের ক্ষেত্রে তা খুবই নিম্ন পর্যায়ে নিয়ে আসা হবে।
রাসেদুল আমিনকে কৃষি বিপণন আইন 2016 এর 19 (1) (এ) ধারায় 20,000 ক্রাউন জরিমানা করা হয় অবৈধভাবে ভোজ্যতেল মজুদ করা, বাজারে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টি করা এবং তেল কেনার রসিদ ও লাইসেন্স না থাকার অভিযোগে। গোডাউনটিও সিলগালা করা হয়েছে।

ভোলায় ৬৮০০ লিটার সয়াবিন তেল মজুদ গোডাউন সিলগালা

এবং তেল ক্রয় ও লাইসেন্সসহ প্রয়োজনীয় বৈধ রশিদ দেখাতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। প্রয়োজনীয় কাগজপত্র যাচাই-বাছাই করে পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
ভালো জেলা মার্কেটিং অফিসার। মোস্তফা সোহেল বলেন, খুচরা বিক্রেতা রাশেদুর আমিন উচ্চমূল্যে বিক্রির জন্য বিপুল পরিমাণ সয়াবিন তেল সংগ্রহ করেছেন এবং বৈধ কাগজপত্র দিতে পারেননি।

About admin

Leave a Reply

Your email address will not be published.